National

সেপ্টেম্বরে বিপিএলের নিলাম, নির্বাচনের পর গড়াবে খেলা

আগামী সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) দশম আসরের প্লেয়ার ড্রাফট হবে। আর মূল আসর মাঠে গড়াবে জাতীয় নির্বাচনের পর। এমনটাই জানিয়েছেন, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক ও বিপিএলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক।

এশিয়া কাপ ও বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ভাবনায় আফগানিস্তান সিরিজ। টাইগাররা আপাতত প্রস্তুতি সারছে সে সব ম্যাচের জন্য। বিসিবির নির্বাচকরাও ব্যস্ত দল ঘোচানো নিয়ে। এর মাঝে বোর্ডের অন্যতম পরিচালক ইসমাইল মল্লিক হাজির আগামী বিপিএলের পরিকল্পনা নিয়ে। কারণ ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগটির সদস্য সচিব তিনি।

দেশের ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ বিপিএল অনুষ্ঠিত হয় সাধারণত জানুয়ারিতে। এদিকে বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচনও অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা একই মাসে। যার কারণে আগামী আসর শুরুর দিনক্ষণ নিয়ে জটিলতা তৈরি হয়েছে। তবে ইসমাইল জানিয়েছেন, নির্বাচন জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে হলে ১০ জানুয়ারি বা কাছাকাছি সুবিধাজনক সময়ে শুরু হতে পারে বিপিএল। ইসমাইল মল্লিক বলেন, ‘বিপিএলের সম্ভাব্য সূচি কি হতে পারে তা নিয়ে আমাদের বোর্ড মিটিংয়ে আলোচনা হয়েছে। সেখানে আমাদের প্রাথমিকভাবে সিদ্ধান্ত হয়েছে যে জাতীয় নির্বাচনের পরপরই যেন আমরা বিপিএলটা শুরু করতে পারি। পত্র-পত্রিকার মাধ্যমে শোনা যাচ্ছে জাতীয় নির্বাচনের তারিখটা জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে হতে পারে। সেক্ষেত্রে ১০ তারিখ বা সুবিধাজনক তারিখ দেব। এটা আমরা বিপিএলের আগামী মৌসুমের শুরুর তারিখটা আমরা ঠিক করেছি।’

জানুয়ারির ১০ তারিখে শুরু হলে আসর আবার শেষ করতে হবে ফেব্রুয়ারির প্রথম দুই সপ্তাহের মধ্যেই। কারণ ওই মাসের মাঝামাঝিতে বাংলাদেশ সফরে আসবে শ্রীলঙ্কা। বিপিএলের সূচি আপাতত কিছু বিষয়ের ওপর নির্ভর করলেও, প্লেয়ার ড্রাফটের বিষয়টি আগেই সেরে রাখতে চায় বিসিবি।আগামী সেপ্টেম্বরে নিলামের পরিকল্পনা আছে বোর্ডের। যাতে পর্যাপ্ত সময় নিয়ে দল ঘোচাতে পারে দলগুলো। এ বিষয়ে ইসমাইল মল্লিক বলেন, ‘যে করেই হোক ফেব্রুয়ারির মধ্যে আমাদের খেলাটা শেষ করতে হবে। কারণ এর পরেই আমাদের শ্রীলঙ্কা সিরিজ আছে। আর প্লেয়ার ড্রাফটটা আমরা সেপ্টেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহ বা শেষ সপ্তাহের মধ্যে শেষ করে দিতে চাই। যাতে প্রত্যেকটা দল নিজেদের গুছাতে পর্যাপ্ত সময় পায়।’ এর আগে চলতি বছরের ৬ জানুয়ারি থেকে ১৬ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হয়েছে বিপিএলের নবম আসর। যেখানে সিলেট স্ট্রাইকার্সকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

এদিকে বিপিএলের গত আসরটা সমালোচিত ছিল গ্রুপ পর্বে ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম (ডিআরএস) না থাকায়। নবম আসরে এসেও ক্রিকেটের আধুনিক প্রযুক্তি না রাখায় আয়োজকদের সামর্থ্য নিয়ে সে সময় প্রশ্ন তুলেছিল অনেকে। এবার তাই সতর্ক বিসিবি। মল্লিক জানিয়েছেন, দশম আসরের শুরু থেকেই থাকবে ডিআরএস। তিনি বলেন, ‘গতবার আমরা ডিআরএস আনতে পারিনি গ্রুপ ম্যাচগুলোতে। আমাদের এলিমিনেটর এবং ফাইনালে ডিআরএস ছিল। এবার বোর্ড সরাসরি ডিআরএসের সঙ্গে চুক্তি করেছে। বিপিএলের তিন মৌসুম এবং আরও এক বছর নিশ্চিত করা হয়েছে ডিআরএসের ব্যাপারটা। ডিআরএস যেহেতু একটিই কোম্পানি, সেটা আমরা আইসিসির মধ্যস্ততায় চুক্তি করছি। ফলে আইসিসির নীতিমালা বোর্ডের সঙ্গে চুক্তিটা করা হচ্ছে।’

Related Articles

Back to top button