National

ছুটি বাড়ল ৫ দিনের ঈদের ছুটি পাচ্ছেন সরকারি ও বেসরকারি চাকরিজীবীরা

ঈদ মানে খুশি, ঈদ মানে আনন্দ। ঈদের আগেই সরকারের এক ঘোষণায় সেই খুশি আরও বেড়ে গেল চাকরিজীবীদের। ঈদের তিন দিনের ছুটির সঙ্গে আরও একদিনের ছুটি বেড়ে যাওয়ায় মোট ৫ দিনের ছুটি পাচ্ছেন সরকারি ও বেসরকারি চাকরিজীবীরা।

সোমবার (১৮ জুন) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে একদিন ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়। মন্ত্রিসভায় একদিন বাড়তি ছুটি অনুমোদন করায় পবিত্র ঈদুল আজহায় পাঁচ দিনের ছুটির কথা জানানো হয়।

২০২৩ সালের সরকারি ছুটির তালিকা অনুযায়ী, আগামী ২৮ থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত ঈদুল আজহার নির্ধারিত সরকারি ছুটি থাকবে। তবে এ ছুটি ২৭ জুন থেকে দেয়ার জন্য সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রিসভা।

ফলে আগামী ২৭ জুন (মঙ্গলবার) থেকে ৩০ জুন (শুক্রবার) পর্যন্ত থাকবে ঈদের ছুটি। পরদিন ১ জুলাই (শনিবার) থাকবে সাপ্তাহিক ছুটি। সে হিসেবে মোট ৫ দিন ছুটি পাবেন সরকারি-বেসরকারি চাকরিজীবীরা। ছুটি বাড়ানোর ঘোষণায় আনন্দ প্রকাশ করে নাম প্রকাশ না করার শর্তে সরকারি এক কর্মকর্তা সময় সংবাদকে বলেন, ‘এবার আমাদের ডাবল ঈদ। মোট ৫ দিনের ছুটি হওয়ায় শান্তিতে গ্রামে গিয়ে আপনজনদের সঙ্গে আনন্দে ঈদ উদ্‌যাপন করতে পারব।’ ঈদযাত্রা স্বস্তিদায়ক করতে সর্বশেষ গত ঈদুল ফিতরে একদিন ছুটি বাড়ানোর অনুমোদন দিয়েছিল মন্ত্রিসভা। রমজান মাস ২৯ দিন ধরে ২২ এপ্রিল (শনিবার) ঈদুল ফিতরের তারিখ নির্ধারণ করে ছুটির তালিকা তৈরি করা হয়েছিল। সে অনুযায়ী ২১, ২২ ও ২৩ এপ্রিল (শুক্র, শনি ও রোববার) ঈদের ছুটি ছিল। তার আগে ১৯ এপ্রিল (বুধবার) ছিল শবে কদরের ছুটি। মধ্যে ২০ তারিখ ছুটি ঘোষণা করায় ১৯ থেকে ২৩ তারিখ পর্যন্ত টানা ৫ দিন ছুটি কাটান সরকারি চাকরিজীবীরা। এর আগে গত মঙ্গলবার (১৩ জুন) সচিবালয়ে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি ঈদের ছুটি একদিন বাড়ানোর সুপারিশ করে। সভা শেষে এ তথ্য জানান আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতিও ঈদের ছুটি একদিন বাড়ানোর সুপারিশ করে। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী জানান, আগামী ২৯ জুন ঈদুল আজহার ছুটি ধরে ২৭ তারিখ থেকে ঈদের ছুটি দিতে সুপারিশ করে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। এদিকে জিলহজ মাসের চাঁদ দেখতে সন্ধ্যায় জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে বৈঠকে বসছে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটি। চাঁদ দেখা সাপেক্ষ আগামী ২৯ জুন অথবা ৩০ জুন সারা দেশে ঈদুল আজহা উদ্‌যাপিত হবে। অন্যদিকে সৌদি আরবের আকাশে রোববার (১৮ জুন) পবিত্র জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেছে। ফলে আগামী ২৮ জুন (বুধবার) দেশটিতে পবিত্র ঈদুল আজহা উদ্‌যাপিত হবে। সৌদির চাঁদ দেখা কমিটির বরাতে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম খালিজ টাইমস জানায়, জিলহজ মাসের চাঁদ উঠায় আগামী ২৭ জুন সৌদিতে পবিত্র আরাফাহ দিবস (হজ) এবং ২৮ জুন ঈদুল আজহা (কোরবানি) উদ্‌যাপিত হবে। এর আগে পবিত্র ঈদুল আজহা উদ্‌যাপনের তারিখ ঘোষণা করে মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া ও ব্রুনাই। রোববার চাঁদ দেখা যায়নি বলে এসব দেশে ২৯ জুন (বৃহস্পতিবার) কোরবানির ঈদ উদ্‌যাপন করা হবে। চাঁদ দেখা সাপেক্ষে ইসলামের ১২ মাসের সূচনা হয়। জিলহজ মাসের চাঁদ দেখার মাধ্যমে হজ ও পবিত্র ঈদুল আজহা কবে উদ্‌যাপন করা হবে তা নির্ধারণ করা হয়। সেই অনুযায়ী, ঈদুল আজহার প্রথম দিন জিলহজ মাসের ১০ম দিনে পড়ে। আর পবিত্র আরাফাহ দিবস পালন করা হয় জিলহজ মাসের ৯ম দিনে। ঈদুল আজহা মুসলমানদের দ্বিতীয় বৃহত্তম উৎসব এবং ত্যাগের উৎসব। ঈদুল আজহার দিন বিশ্বব্যাপী মুসলমানরা পশু কোরবানি দেন। এছাড়া আরাফাহর দিন হজ পালনকারী মুসলমানরা মক্কার বাইরে অবস্থিত আরাফাতের ময়দানে সমবেত হন। আরবি চান্দ্র বর্ষপঞ্জিকা অনুযায়ী, জিলহজ মাসের ১০ তারিখ ঈদুল আজহা বা কোরবানির ঈদ উদ্‌যাপন করেন মুসলমানরা।

Related Articles

Back to top button